‘ভারতীয় সেনাবাহিনী পৃথিবীতে সবচেয়ে শক্তিশালী’- মোদি

325 Shares

ভারতীয় সেনাবাহিনীই পৃথিবীর মধ্যে সবচেয়ে সাহসী এবং শক্তিশালী বলে দাবি করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি বলেন, দেশরক্ষায় সেনারা যে পরাক্রম দেখিয়েছে তাতে গোটা বিশ্বে ভারতের শক্তি প্রমাণিত। সেনাবাহিনীর উপরে সমগ্র ভারতবাসীর আস্থা রয়েছে। সেনাদের বীরত্বই আত্মনির্ভর ভারত গঠনের সংকল্প আরও দৃঢ় করছে।’

শুক্রবার লাদাখ পরিদর্শনে গিয়ে এই মন্তব্য করে মোদি আরো বলেন, ‘শত্রুরা ভারতীয় সেনার আগুন এবং আক্রোশ দেখেছে। আপনারা যেখানে মোতায়েন আছেন, তার থেকেও আপনাদের সাহস বেশি। দুর্বলরা কোনওদিনই শান্তি রক্ষার উদ্যোগ নিতে পারে না। আপনাদের ইচ্ছাশক্তি হিমালয়ের মত দৃঢ়। গোটা দেশ আপনাদের নিয়ে গর্বিত।’

চীনের নাম না করে তিনি বলেন,‘বিস্তারবাদের যুগ শেষ। এখন বিকাশবাদের যুগ। বিস্তারবাদীরা শান্তি নষ্ট করে। জল, স্থল, অন্তরীক্ষে শক্তি বাড়িয়েছে ভারত। লাদাখ চক্রান্ত ব্যর্থ করেছে ভারতীয় সেনা।’ তার দাবি,‘লাদাখ ভারতের মাথা, সম্মানের প্রতীক।’

তবে মোদির বক্তব্যে চীনের নাম উল্লেখ না থাকার অভিযোগে তাঁকে কটাক্ষ করেছেন, কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সিং সূর্যেওয়ালা। তিনি বলেন, গত ২৮ মে ‘মন কী বাত’(মনের কথা) অনুষ্ঠানে চীনের নাম নেই। ৩০ মে দেশবাসীর উদ্দেশ্যে দেওয়া বার্তায় চীনের নাম নেই। ৩ জুলাই সেনাদের সঙ্গে কথা বলার সময়ে চীনের নাম নেই। চীনের নাম এড়িয়ে যাচ্ছেন কেন?’

‘শক্তিশালী ভারতের প্রধানমন্ত্রী এত দুর্বল কেন? চীনের সঙ্গে চোখে চোখ রেখে কবে কথা হবে’ বলেও কংগ্রেস নেতা রণদীপ সিং সূর্যেওয়ালা মন্তব্য করেন।

রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী ও কংগ্রেসের সিনিয়র নেতা অশোক গেহলট বলেছেন, ‘ভারত সুপার পাওয়ার কিন্তু দেশের প্রধানমন্ত্রী চীনের নামও নেন না। চীন আমাদের মাথায় বসে আছে জেনেও কী কারণে প্রধানমন্ত্রীর মুখ থেকে ‘চীন’ শব্দটি বের হয় না? প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির উচিত দেশের সীমান্তের পরিস্থিতির কথা জানানো।

এদিকে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির লাদাখ সফরের দিনেই আজ চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিঝিয়ান বলেন, ‘ভারত ও চীনের মধ্যে যোগাযোগ রয়েছে। উত্তেজনা কমানোর উদ্দেশ্যে সামরিক ও কূটনৈতিক স্তরে আলোচনা চলছে। পরিস্থিতি ফের নতুন গতি পেতে পারে এমন কোনও অ্যাকশন থেকে উভয়পক্ষেরই বিরত থাকা উচিত।’

উল্লেখ্য গত ১৫ জুন রাতে লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় ভারত ও চীনা সেনার মুখোমুখি সংঘর্ষে এক কর্নেল-সহ ২০ ভারতীয় সেনা জওয়ান নিহত হওয়ার পর সারা ভারত জুড়ে তীব্র চীনবিরোধী ‘মনোভাব’ তৈরি হয়েছে। লাদাখে দুই দেশের মধ্যে তৈরি হওয়া উত্তেজনার বিষয়ে গত সপ্তাহেই ‘মন কি বাত’ অনুষ্ঠানে মুখ খোলেন মোদি। সেখানে মোদি দাবি করেন- লাদাখ সীমান্তে চীনকে উপযুক্ত জবাব দিয়েছে ভারত।

সুত্র: এনডিটিভি, এই সময়

325 Shares