ভাঙন হেফাজতে: চাকরিচ্যুত বাবুনগরী, আল্লামা শফি আজীবন পদে বহাল, দৃশ্যপটে নতুন নেতা!

629 Shares

ভাঙনের মুখে পড়েছে হেফাজতে ইসলাম‍! সংগঠনের আমির আল্লামা আহমদ শফীকে আজীবন হাটহাজারী মাদ্রাসার মহাপরিচালক পদে থাকবেন বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে মাদ্রাসার শুরা কমিটি। বুধবার সকাল ১০টা থেকে বিকেল সোয়া ৩টা পর্যন্ত চলা কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক হেফাজত নেতা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানিয়েছেন, একই বৈঠকে মাদ্রাসার বর্তমান সহযোগী পরিচালক হেফাজত মহাসচিব আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীর কাছ থেকে মাদ্রাসার সব দায়িত্ব থেকে তুলে নেওয়া হয়েছে। তার স্থলে মাদ্রাসার সিনিয়র শিক্ষক মাওলানা শেখ আহমদকে সহযোগী পরিচালকের দায়িত্ব দেওয়া হয়। হেফাজতে ইসলামের আমিরের মৃ’ত্যুর পর শেখ আহমদই মাদ্রাসার মহাপরিচালকের দায়িত্ব পালন করবেন।

একটি সূত্র জানায়, হাটহাজারীর দারুল উলুম মাদ্রাসার মুহাদ্দিস হিসেবে ২০১৮ সালের মে মাসে যোগ দেন শাইখুল হাদিস আল্লামা শেখ আহমদ। বাংলাদেশের কওমি অঙ্গনে হাদিসের জনপ্রিয় শিক্ষক হিসেবে পরিচিত রয়েছে তার। তিনি এর আগে চট্টগ্রামের উবাইদিয়া নানুপুর মাদ্রাসার শাইখুল হাদিস হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তাকে আল্লামা শাহ আহমদ শফী’র অন্যতম খলিফা বা সহযোগী বলা হয়ে থাকে।

বৈঠকে উপস্থিত একজন শুরা সদস্য জানান, মঙ্গলবার (১৭ জুন) সকাল সোয়া ১০টার দিকে হাটহাজারী দারুল উলুম মাদ্রাসার মজলিসে শুরার বৈঠক শুরু হয়। বিকেল ৩টা পর্যন্ত চলা ওই বৈঠকের শুরুতে জুনায়েদ বাবুনগরীকে রাখা হয়নি। গণমাধ্যমে এ খবর প্রকাশ হওয়ায় পরে দুপুরে তাকে বৈঠকে ডাকা হয়। ডেকে বৈঠকের সিদ্ধান্তগুলো জানিয়ে দেওয়া হয়। এর ফলে ওই মাদ্রাসা থেকে চাকরিচ্যুত হয়ে গেলেন মাওলানা বাবুনগরী।

বাবুনগরীকে না রাখার বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক হেফাজতে ইসলাম নেতা জানিয়েছেন, বাবুনগরী শুরা কমিটির সদস্য নন, তাই তাকে বৈঠকে রাখা হয়নি।

তবে মাদ্রাসার আরেকটি সূত্র জানিয়েছে, ২০১৭ সালে অনুষ্ঠিত শুরা কমিটির বৈঠকে আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীকে শুরা সদস্য করা হয়। ওই সময় তাকে মাদ্রাসার সহযোগী পরিচালক করা হয়।

যদিও সম্প্রতি একটি ভিডিও বার্তায় মাদ্রাসার মহাপরিচালক হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফী জানিয়েছেন, কাউকে ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক বা সহকারী পরিচালক পদ দেননি।

মাদ্রাসা সূত্রে জানা যায়, ২০১৭ সালের পর আজই দ্বিতীয়বার বৈঠকে বসলো শুরা কমিটি। এই বৈঠক নিয়ে কেউ সরাসরি বক্তব্য না দিলেও সংশ্লিষ্ট সূত্রটি জানিয়েছে, হেফাজত আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফী বার্ধক্যজনিত অসুস্থতাসহ নানা রোগে ভুগছেন। তাই, নিয়মতান্ত্রিকভাবে পরবর্তী মহাপরিচালক নির্বাচন করতেই এই বৈঠক ডাকা হয়েছে। বৈঠকে মৃ’ত্যুবরণ করা সদস্যরা ছাড়া প্রায় সব শুরা সদস্য উপস্থিত ছিলেন বলে জানা গেছে।

মজলিসে শুরা সদস্যদের কয়েকজন হলেন- ঢাকার জামিয়া আরাবিয়া ইমদাদুল উলুম ফরিদাবাদ মাদ্রাসার পরিচালক ও হাইয়াতুল উলয়া কো-চেয়ারম্যান আল্লামা আব্দুল কুদ্দুস, ফরিদাবাদ মাদ্রাসার নায়েবে মুহতামিম ও বেফাক যুগ্ম-মহাসচিব মুফতি নুরুল আমিন, ঢাকার খিলগাঁও মাখজানুল উলুম মাদ্রাসার মাওলানা নুরুল ইসলাম, হাটহাজারীর আল জামিয়াতুল ইসলামিয়া হামিউচ্ছুন্নাহ মেখল মাদ্রাসার পরিচালক মাওলানা নোমান ফয়জী, ফটিকছড়ির জামিয়া উবাইদিয়া নানুপুর মাদ্রাসার পরিচালক মাওলানা সালাহউদ্দিন নানুপুরী ও হাটহাজারীর ফতেপুর মাদ্রাসার পরিচালক মাওলানা মাহমুদুল হাসান ফতেপুরী।

বাংলাট্রিবিউন

629 Shares