কিটের পেছনে আমার ১০ কোটি টাকা লস হয়েছে: জাফরুল্লাহ

0 Shares

সরকারকে উদ্দেশ্য করে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র কিটের অনুমতি চেয়ে আর আবেদন করবে না। কিট উন্নয়নের পেছনে আমার ১০ কোটি টাকা লস হয়েছে, তবুও সরকার অনুমোদন দেয়নি।

মঙ্গলবার ধানমণ্ডির গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র নগর হাসপাতালের সামনে এক অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি।

আজ মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) সারা দেশে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ৩০টি শাখায় করোনার ফ্রন্টলাইনারদের শ্রদ্ধা জানাতে ১ মিনিট করতালি অনুষ্ঠানের আয়োজন করে সংস্থাটি। রাজধানীর ধানমন্ডির গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র থেকে এতে যোগ দেন ড. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। এতে ফ্রন্টলাইনারদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে টানা ১ মিনিট করতালি দেওয়া হয়।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র মিডিয়া উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম মিন্টুর সঞ্চালনায় জিকের পরিচালক মোহাম্মদ শওকত আলী অনুষ্ঠানে উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন।

ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, আমাদের অ্যান্টিবডি এবং অ্যান্টিজেন কিট প্রস্তুত থাকার পরও সরকার তা অনুমোদন না দিয়ে আমদানির অনুমোদন দিয়েছে। এর কারণ এ সরকার ব্যবসায়ীদের সরকার। তাই এটি ব্যবসায়িক উদ্দেশ্য।

তিনি বলেন, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র কিটের অনুমতি চেয়ে আর আবেদন করবে না। তবে সরকার যদি নিজে অনুমোদন দেয়, তবে জিকে কিট সরবরাহ করবে।

সরকারের সমালোচনা করে জাফরুল্লাহ বলেন, সরকার এখনও ভুলনীতিতে চলছে। তারা সময়মতো করোনার ভ্যাক্সিন ট্রায়ালের অনুমোদন দেয়নি।

এ সময় জাফরুল্লাহ চৌধুরী দাবি করেন, কিট উন্নয়ন করতে গিয়ে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ১০ কোটি টাকা লস হয়েছে। কিন্তু সরকার অনুমোদন দেয়নি।

জাফরুল্লাহ আরো বলেন, সরকারের এই ভুল সিদ্ধান্তের জন্য জনগণের কাছে বিচার চাওয়া ছাড়া আর কিছু করার নেই।

তিনি অভিযোগ করেন, সরকার একের পর এক ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যেখানে আমাদের এখানেই অ্যান্টিবডি এবং অ্যান্টিজেন আছে, সেখানে সরকারের ভুল সিদ্ধান্তের কারণে বিদেশের কাছে হাত পাততে হবে। প্রথমে চীন এবং জাতিসংঘের কাছে সরকার হাত পেতেছে। নিজেদের সক্ষমতা প্রমাণের সুযোগ না দিয়েই বিদেশের কাছে হাত পাততে হচ্ছে।

অনুষ্ঠানে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ডাক্তার, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীসহ কয়েকশ মানুষ একযোগে ১ মিনিট করতালি দিয়ে করোনায় সম্মুখযোদ্ধাদের শ্রদ্ধা জানান।

0 Shares