তিন মাসে ১৮ হাজার, অথচ একদিনেই সুস্থ ১৫ হাজার!

241 Shares

স্বাস্থ্য অধিদফতর গত রোববার জানিয়েছিল, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ৯০৩ জন এবং এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৮ হাজার ৭৩০ জন। গত প্রায় তিন মাসে শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ছিল ২১ দশমিক ৪০ শতাংশ।
একদিনের ব্যবধানে গতকাল সোমবার স্বাস্থ্য অধিদফতর বলেছে, এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৩৪ হাজার ২৭ জন। অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১৫ হাজার ২৯৭ জন। ফলে একদিনের ব্যবধানে ২১ শতাংশ থেকে সুস্থতার হার প্রায় ১৬ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৭ দশমিক ৫৫ শতাংশে।
গতকাল সোমবার দুপুরে করোনাভাইরাস বিষয়ক নিয়মিত হেলথ বুলেটিনে এ তথ্য জানান স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।

তিনি বলেন, ‘এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৩৪ হাজার ২৭ জন। শনাক্তের বিবেচনায় সুস্থতার হার ৩৭ দশমিক ৫৫ শতাংশ। গত দিনের চেয়ে আমরা আজ সুস্থতা অনেক বেশি বলছি। কারণ, আজ যারা সুস্থ হয়েছেন তাদের মধ্যে শুধু হাসপাতালের সুস্থতা নয়। বাসায় এবং যারা উপসর্গবিহীন ছিলেন, সবাই এটার মধ্যে যোগ হয়েছেন। এই তথ্য আমাদের আইইডিসিআর সরবরাহ করেছে।’

তিনি আরও জানান, ৫৮টি ল্যাবে করোনাভাইরাস শনাক্তে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৫ হাজার ৭৩৩টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা করা হয় ১৫ হাজার ৩৮টি নমুনা। এ নিয়ে দেশে মোট নমুনা পরীক্ষা করা হলো পাঁচ লাখ ১৬ হাজার ৫০৩টি। নতুন নমুনা পরীক্ষায় করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে আরও তিন হাজার ৯৯ জনের মধ্যে। ফলে ভাইরাসটিতে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৯০ হাজার ৬১৯ জনে। আক্রান্তদের মধ্যে মারা গেছেন আরও ৩৮ জন। এ নিয়ে মোট মৃত্যু হলো এক হাজার ২০৯ জনের।

রোববার তিনি জানিয়েছিলেন, ৬০টি ল্যাবে নমুনা সংগ্রহীত এবং পরীক্ষা হয়েছে। নতুন সংযোজিত হয়েছে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান আইজি হাসপাতাল লিমিটেড ঢাকা। তাতে ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ হয়েছে ১৪ হাজার ৬৯০টি। পরীক্ষা হয়েছে ১৪ হাজার ৫০৫টি এবং এখন পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা হয়েছে পাঁচ লাখ এক হাজার ৪৬৫টি। গত ২৪ ঘণ্টায় যে নমুনা পরীক্ষা হয়েছে, তাতে শনাক্ত হয়েছেন তিন হাজার ১৪১ জন। শনাক্তের হার ২১ দশমিক ৬৫ শতাংশ। এখন পর্যন্ত শনাক্ত হয়েছেন ৮৭ হাজার ৫২০ জন। ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৯০৩ জন। এখন পর্যন্ত ১৮ হাজার ৭৩০ জন সুস্থ হয়েছেন। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ২১ দশমিক ৪০ শতাংশ। ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণ করেছেন ৩২ জন। এখন পর্যন্ত এক হাজার ১৭১ জন মৃত্যুবরণ করেছেন। শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৩৪ শতাংশ।’

241 Shares