ইসরাইলকে আরেক মুসলিম দেশের স্বীকৃতি!

0 Shares

ইউরোপের মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ কসোভো ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে আরব লিগ।

আরব লিগের মহাসচিব আহমাদ আবুলগেইত গতকাল শনিবার কায়রোয় এক বক্তব্যে এ নিন্দা জানান। সংবাদমাধ্যম পার্সটুডের খবরে এমনটি জানানো হয়েছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গত শুক্রবার ঘোষণা দেন, বলকান অঞ্চলের দুই প্রতিদ্বন্দ্বী দেশ সার্বিয়া ও কসোভোর মধ্যে একটি শান্তিচুক্তি স্বাক্ষরে যুক্তরাষ্ট্র মধ্যস্থতা করেছে। একটি রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে লিপ্ত হওয়ার দুই যুগ পর এ দুই দেশ একটি চুক্তিতে পৌঁছাল।

তবে এই চুক্তিতে দুটি অপ্রত্যাশিত এবং অনাকাঙ্ক্ষিত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সার্বিয়া বলেছে, তারা তাদের দূতাবাস তেল আবিব থেকে সরিয়ে অধিকৃত জেরুজালেমের আল কুদসে নিয়ে যাবে। মুসলিম অধ্যুষিত কসোভোও প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেছে, তারাও দখলদার ইসরায়েলকে স্বীকৃতি দেবে এবং একই সঙ্গে তারা ইসরায়েলের স্বীকৃতির পর জেরুজালেমের আল কুদসে তাদের নিজস্ব দূতাবাস স্থাপন করবে।

আরব লিগের মহাসচিব আহমাদ আবুলগেইত কসোভোর এ সিদ্ধান্তকে ‘ভ্রান্ত’ এবং ‘জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রস্তাববিরোধী’ বলে মন্তব্য করেছেন। ফিলিস্তিন মুক্তি সংস্থা পিএলওর নির্বাহী কমিটির সচিব সায়েব এরকাতও সার্বিয়া ও কসোভোর এ সিদ্ধান্তের নিন্দা জানিয়ে বলেছেন, ডোনাল্ড ট্রাম্প তাঁর নির্বাচনী অভিলাষ পূর্ণ করতে ফিলিস্তিনি জনগণকে বলির পাঁঠা বানাচ্ছেন।

0 Shares