❝আমি গুলি-বোমা-গ্রেনেড মোকাবেলা করে এতদূর এসেছি, ভাইরাস কিসের ভয়?❞

13 Shares

‘আমি গু’লি বো’মা গ্রেনেড হাম’লা দেখেছি। এসব মোকাবেলা করে এতদূর এসেছি। অথচ এখন এই করোনা পরিস্থিতিতে আমাকে বলা হচ্ছে, আপনি এখানে যেতে পারবেন না, ওখানে যেতে পারবেন না। আর একটা অদৃশ্য ভাইরাস, তাকে ভয় পাবো?’

আজ রোববার, ১৪ জুন সংসদে চলতি সংসদের সদস্য মোহাম্মদ নাসিম এবং ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ’র মৃ’ত্যুতে শোক প্রস্তাবে অংশ নিয়ে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, যে দুজন মানুষ সবসময় আমার পাশে ছিলেন, তাদের দুজনকেই একই দিনে হারালাম। আমি মোহাম্মদ নাসিম এবং ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ’র মৃ’ত্যুতে শোক প্রকাশ করছি। তাদের শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি এবং তাদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এখন আমরা যে অবস্থাটা দেখছি এমনটা আর কখনও দেখিনি। আমার সহযো’দ্ধা, আমার ক্যাবিনেট মন্ত্রীরা মা’রা যাচ্ছেন। অথচ আমি তাদের দেখতে যেতে পারছি না। আমি গু’লি বো’মা গ্রেনেড হাম’লা দেখেছি। অথচ এখন এই করোনা পরিস্থিতিতে আমাকে বলা হচ্ছে, আপনি এখানে যেতে পারবেন না, ওখানে যেতে পারবেন না।

প্রসঙ্গত, আজ বেলা সাড়ে ১১টায় জাতীয় সংসদের মূলতবি অধিবেশন শুরু হয়েছে। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে শুরু হওয়া অধিবেশনে চলতি সংসদের সদস্য মোহাম্মদ নাসিমের মৃ’ত্যুতে শোক প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা শুরু হয়। সংসদ নেতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ অন্যান্য সদস্যরা উপস্থিত আছেন।

সংসদীয় রেওয়াজ অনুযায়ী, অধিবেশনের শুরুতে সম্পুরক কার্যসূচী শোক প্রস্তাব সংসদে উত্থাপন করেন স্পিকার। তিনি এ সময় আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ১৪ দলের সমন্বয়ক মোহাম্মদ নাসিমের জীবন বৃত্তান্ত তুলে ধরেন। একই সময় ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ’র জীবন বৃত্তান্তসহ শোক প্রস্তাব উত্থাপন করা হয়। এরপর মোহাম্মদ নাসিমের জীবন ও কর্মের উপর আলোচনা শুরু হয়।

উল্লেখ্য, গত ১০ জুন বাজেট অধিবেশন শুরু হয়। পরদিন ১১ জুন সংসদে ২০২০-২১ অর্থ বছরের বাজেট প্রস্তাব উপস্থাপন করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। এরপর ২ দিনের জন্য সংসদ অধিবেশন মুলতবি ঘোষণা করা হয়।

13 Shares